ওয়ার্ডপ্রেসফিচার্ড

ওয়ার্ডপ্রেস কি? কিভাবে ওয়ার্ডপ্রেস সাইট তৈরি করবেন? Best of 2021

ওয়ার্ডপ্রেস কি? কিভাবে ওয়ার্ডপ্রেস সাইট তৈরি করবেন।

প্রথমেই আমরা জেনে নেই,

ওয়ার্ডপ্রেস কি?

বর্তমানে সবচেয়ে জনপ্রিয় একটা প্লাটফর্ম হচ্ছে ওয়ার্ডপ্রেস। ওয়ার্ডপ্রেস হলো CMS (Content Management System) সফটওয়্যার। যেটা ২০০৩ সালের ২৭শে মে তৈরি করা হয়। এটা সম্পূর্ণ ফ্রি এবং ব্যবহার করাও অত্যন্ত সহজ।

ওয়ার্ডপ্রেস মূলত PHP ল্যাংগুয়েজ দ্বারা তৈরি। যেখান থেকে কোনো প্রকার কোডিং বা প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ জানা ছাড়াই।

আপনি যেকোনো রকম ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারবেন। এটা মূলত ব্লগ ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্যই বানানো হয়েছিল। এখন ব্লগ সাইট থেকে শুরু করে ই-কমার্স, প্রশ্নউত্তর, সহ সকল রকম সাইট তৈরি করা যায়। এই ওয়ার্ডপ্রেস থেকেই।

তো আজকে আমি দেখাবো। ওয়ার্ডপ্রেস কি? কিভাবে ওয়ার্ডপ্রেস সাইট তৈরি করবেন? আপনাদেরকে ওয়েবসাইট তৈরি করার আগে অবশ্যই ডোমেইন হোস্টিং কিনে নিতে হবে। কারণ হোস্টিং ছাড়া ওয়ার্ডপ্রেস ব্যবহার করা যায়।

এক্ষেত্রে আপনারা ফ্রি হোস্টিংও ব্যবহার করতে পারেন। গুগলে সার্চ করলেই এমন অনেক ফ্রি হোস্টিং সাইট পেয়ে যাবেন। প্রাকটিস এর জন্য ফ্রী হোস্টিং ব্যবহার করাই ভালো।

কিভাবে ওয়ার্ডপ্রেস সাইট তৈরি করবেন,

এবার আমাদের পরবর্তী কাজ হলো, আমাদের হোস্টিং এর সিপ্যানেলে চলে যাওয়া। প্রতিটি হোস্টিং কেনার পরেই হোস্টিং প্রোভাইডাররা হোস্টিং এর সিপ্যানেলের এক্সেস দিয়ে থাকে।

যেটা আপনার মেইল চেক করলেই পেয়ে যাবেন। তো সেখান থেকেই আপনার সি-প্যানেলে লগইন করে নেবেন।

এবার Softaculous Apps Installer এ ক্লিক করবেন।

ওয়ার্ডপ্রেস কি, কিভাবে ওয়ার্ডপ্রেস সাইট তৈরি করবেন

কিছু কিছু হোস্টিংয়ে আবার সরাসরি ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল এর অপশন দেওয়া থাকে। তো সেখানে ক্লিক করলেও হয়ে যাবে।

এখন Install Now লেখাতে ক্লিক করতে হবে।

কিভাবে ওয়ার্ডপ্রেস সাইট তৈরি করবেন

এখন আপনাকে আপনার ওয়েব সাইটের সকল ডিটেলস দিয়ে দিতে হবে। আপনি কোন ডোমেইনে ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করতে চাচ্ছেন? ওয়ার্ডপ্রেস এর ভার্সন? আপনার ওয়েবসাইটের নাম? ওয়েবসাইট এর টাইটেল? এগুলো সবগুলো পূরণ করে ফেলবেন।

এখানে দেখতে পাবেন আপনাকে একটা ইউজাম নেম এবং পাসওয়ার্ড দিতে বলবে। যেটা মূলত আপনার সাইটের এডমিনের একাউন্ট হবে। অর্থাৎ এই একাউন্ট দিয়ে সাইটের সব কিছু কন্ট্রোল করা যাবে। তো আপনার পছন্দ মতো ইউজার নেম ও পাসওয়ার্ড দিয়ে দিবেন।

আর শেষে আপনার একাউন্ট এর মেইলটা দিয়ে দিবেন। এখানে যে নামে ইমেলটি দিবেন সেটা হোস্টিং থেকে অটোমেটিক তৈরি হয়ে যাবে।

সকল কিছু দিয়ে দেওয়ার পর ইনস্টল লেখাতে ক্লিক করবেন।

ইনস্টল হতে ১-২ মিনিট টাইম লাগবে। এবং ইনস্টল সম্পূর্ণ হলে Congratulations লেখা আসবে।
ব্যস আমাদের কাজ শেষ। এটা আপনার হোস্টিং এ প্রায় ৮০ এমবির মত জায়গা দখল করে নেবে। ওয়ার্ডপ্রেস কি।

আমাদের ওয়েবসাইটটি কিন্তু রেডি হয়ে গিয়েছে। চাইলে আপনারা এটা ভিজিট করে দেখতে পারেন। যেমন আমারটা me.itjani.com । এখানে আমি আমার সাবডোমেইনে ওয়ার্ডপ্রেস ইনস্টল দিয়েছি।

প্রশ্ন আসতে পারে, আপনার ওয়েবসাইট এর কন্ট্রোল প্যানেলে কিভাবে ঢুকবেন?

তো আপনার ওয়েবসাইটের লিংক এর শেষে /wp-admin বা /admin দিয়ে দিলেই হয়ে যাবে। যেমন, itjani.com/admin। এখানে আপনাকে লগিন করতে বলবে।

তো একটু আগে যে ইউজারনেম এবং পাসওয়ার্ড দিয়েছিলেন। সেটা দিয়ে লগইন করে নেবেন।

এটা আপনার ওয়ার্ডপ্রেসের ড্যাশবোর্ড। এখান থেকে আপনার ওয়েবসাইটটি পুরোপুরি কন্ট্রোল করা যাবে। এখানে কন্ট্রোল এর সকল অপশন রয়েছে। কিভাবে ওয়ার্ডপ্রেস সাইট তৈরি করবেন

কিভাবে ওয়ার্ডপ্রেস সাইট তৈরি করবেন

ওয়ার্ডপ্রেস ড্যাশবোর্ড

Posts

প্রথমে রয়েছে পোস্ট। এখান থেকে আপনার ওয়েবসাইটে পোস্ট করতে পারবেন। আগের পোস্ট গুলো ইডিট করতে পারবেন। ক্যাটাগরিও যুক্ত করতে পারবেন।

Pages

প্রতিটি ওয়েবসাইটের কয়েকটি করে পেজ থাকে। যেমন, About, Contact, Disclaimer ইত্যাদি। এই পেইজগুলো  থেকে তৈরি বা ডিলিট করতে পারবেন।

Media

আপনার ওয়েবসাইটে ভিডিও বা ছবি এড করার জন্য। এখান থেকে সেগুলো ম্যানেজ করতে পারবেন।

Appearance

Theme
প্রতিটি ওয়েবসাইটই একটা থিম দিয়ে তৈরি। Theme থেকে আপনার সাইট নতুন থিম এড করতে পারবেন।   প্রয়োজনমতো থিম সেখান থেকে একটিভ বা ডিলিট করে নিতে পারবেন।

Customize
এখান থেকে আপনার ওয়েবসাইটটি পুরোপুরি কাস্টমাইজ করতে পারবেন। শুধুমাত্র ড্রাগ এন্ড ড্রপ এর মাধ্যমে। পুরো সাইটটা নিজের মতো করে ডিজাইন করতে পারবেন।

Widgets
এটা মূলত মোবাইলের উইডজেট এর মতো। সাইটে বিভিন্ন জায়গায় শো করানো যায়।

Menu
সাইটে কিছু জিনিস তালিকা আকারে থাকে। যেমন, পেজ, ক্যাটাগরি। এগুলো মেনু আকারে তৈরি বা ইডিট করার এই মেনু অপশন ব্যবহার করা হয়।

Theme Editor
থিমকে ইডিট করার জন্য এটা ব্যবহার করা হয়। চাইলে আপনি থিমের কোডিং গুলো নিজের মতো করে ইডিট করতে পারবেন। অবশ্যই এক্ষেত্রে আপনাকে প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ জানতে হবে।

Plugins

ওয়েব সাইটকে আরো সুন্দর, দ্রুততম এবং কন্ট্রোল করার সুবিধার্থে প্লাগিন ব্যবহার করা হয়। আপনারা নতুন প্লাগিন অ্যাড করতে পারবেন। আগের প্লাগিনগুলো ম্যানেজ করতে পারবেন।

Users

আপনার ওয়েবসাইটে অনেকেই রেজিস্ট্রেশন করতে পারে। এখান থেকে তাদেরকে আপনি কন্ট্রোল করতে পারবেন। চাইলে আপনি নতুন ইউজার এখান থেকে এড বা ডিলিট করে নিতে পারবেন।

Tools

সাইটের পোস্টগুলো এক্সপোর্ট বা ইমপোর্ট করতে পারবেন। তাছাড়াও সাইটের ডাটাগুলো ব্যাপআপ নিতে পারবেন। এই টুলসের মাধ্যমে।

Settings

প্রতিটি ওয়েবসাইটেরই সেটিং থাকে। এখান থেকে আপনারা ওয়েবসাইটের নাম, লিংক, হোমপেজ, ডাটা ইত্যাদি পরিবর্তন করতে পারবেন। সকল ধরনের পারমিশনও এখানে থেকেই দিতে পারবেব। এ ধরনের সকল কাজ সেটিং থেকে কন্ট্রোল করা হয়।

বিদ্রঃ আমার সাইটে এক্সট্রা কিছু প্লাগিন ব্যবহার করা হয়েছে। যার ফলে নতুন কিছু অপশন দেখা যাচ্ছে। যেটা আপনাদেরকে দেখাবে না।

আশা করি আপনাদেরকে ওয়ার্ডপ্রেস কি, কিভাবে ওয়ার্ডপ্রেস সাইট তৈরি করবেন  বুঝাইতে পেরেছি। তারপরও যদি কারো কোনো সমস্যা বা প্রশ্ন থাকে তাহলে কমেন্ট করতে পারেন।

আরও পড়ুন,

বাংলাদেশের ইতিহাস 1947–1954।

Ragib Hasan Abid

Read for your Learning, Not for the Exam.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button